ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২

পটুয়াখালীতে উফল পল্লী বিদ্যুতের এজিএমের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ

পটুয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বাউফল জোনাল অফিসের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (এজিএম) প্রকৌশলী গগন সাহার বিরুদ্ধে অফিসের কর্মচারী ও গ্রাহকের সাথে অসদাচরণ করাসহ নানা অভিযোগ আখড়ায় পরিণত হয়েছে।


অভিযোগ রয়েছে- তিনি অফিসের নিয়মনীতির কোনো তোয়াক্কা না করে যখন ইচ্ছা অফিসে আসেন, আবার যখন ইচ্ছা অফিস ত্যাগ করেন। এমনকি অধীনস্থ কর্মচারীদেরকে খারাপ ভাষায় গালমন্দও করেন। শুধু গালমন্দ করেই ক্ষান্ত থাকেন না গগন সাহা। তার এসব কর্মকাণ্ডের কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে দেয়া হচ্ছে চাকুরিচ্যুতের হুমকি। তার এমন আচরণে কর্মচারীদের মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করলেও চাকুরির ভয়ে কেউ মুখ খুলছেন না।


নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই অফিসের এক লাইনম্যান অভিযোগ করে বলেন, গগন সাহা চলতি বছরের ৫ জুলাই বাউফলপল্লী বিদ্যুৎ অফিসে যোগদান করেছেন। সে আসার পর থেকে অফিসের সেবার মান লাঠে উঠেছে। বিদ্যুৎ অফিসের কর্মচারীরা ভয়ের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সকাল ৮টায় অফিসে আসার কথা থাকলেও প্রায়ই তিনি অফিসে সকাল ৯টার পর।


তিনি আরও বলেন, সাধারণ গ্রাহক ও অফিসের কর্মচারীদের সাথে তুই-তামারি ভাষায় কথা বলেন। তাদেরকে নুন্যতম সম্মানটুকু দেন না। এমনকি ব্যক্তিগত বাজারও তিনি অফিসের কর্মচারীদের দিয়ে করিয়ে থাকেন। এছাড়া সকল সাব-স্টেশনেরইনচার্জদের ডেকে মিটার লিডারদের বিরুদ্ধে সাজানো অনিয়মের অভিযোগ দিতে বলেন তিনি।


ওই লাইনম্যানের অভিযোগ, কোনো ইনচার্জ যদি মিটারলিডারদের বিরুদ্ধে তার (গগন সাহা) ইচ্ছে মতো সাজানো অভিযোগ দিতে পারেন, তাহলে স্যারকে বলে ওই ইনচার্জদেরকে প্রমোশন দেওয়া হবে বলেও আশ্বস্ত করেন গগন সাহা।


অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে গগন সাহা বলেন, এ ব্যাপারে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। আপনি সাংবাদিক আমার উর্ধতন কর্তৃপক্ষের বক্তব্য নিতে পারেন।


এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুৎ বাউফল জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) মো. মুজিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, যেহেতু আমি তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাইনি, সেহেতু অভিযোগগুলো মিথ্যা বলে আমি মনে করছি।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৩৪০৬৭ ২৯৩২৭৬
আক্রান্ত ৩৬৮ ১,৯৪৬,৭৩৭
সুস্থ ৪,০১৮ ১,৮৩৯,৯৯৮
মৃত ১৩ ২৯,০৭৭

Our Facebook Page