ঢাকা, রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

বিকালে জমজমাট বাণিজ্য মেলা

                                                                                                   ক্রেতা কম থাকলেও দর্শনার্থীর সংখ্যা অধিক

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ২৭তম আসরের আজ চতুর্থ দিনে দর্শনার্থী ও ক্রেতাগনের বেশ সমাগম দেখা যায়। যদিও মেলাতে সকালে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের সমাগম অনেকটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বেশ ভিড় লক্ষ্য করা যায়। তবে মেলাতে ক্রেতাদের চাইতে দর্শনার্থীদের সংখ্যা অনেক বেশি।


কিন্তু বিক্রেতারা বলছেন- সবেমাত্র মেলা শুরু, মেলাতে অনেকে ঘুরছে, অনেকে পণ্য দেখছে, তাদের পছন্দের মতো পণ্য পেলে তা ক্রয় করছেন। দু-একদিনের মধ্যে বেচা বিক্রি বেড়ে যাবে বলে বিক্রেতারা প্রত্যাশা করছেন।


এ দিকে গাজীপুর বাইপাস ও এশিয়ান হাইওয়ে সড়কে ১০ কিলোমিটার জুড়ে দীর্ঘ যানজটের কারণে এ সড়কে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণ ও মেলায় আসা দর্শনার্থীদের পোহাতে হয়েছে চরম ভোগান্তি। যানজট নিরসনে কর্তৃপক্ষের নজরদারি চান মেলায় আগত ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা।


মেলার চতুর্থ দিনে দেখা যায়, ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় সকালের সময়ে দর্শনার্থী ও ক্রেতা সমাগম কম থাকলেও দুপুর হতে শুরু করলে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের অনেকটা সমাগম বাড়তে থাকে। অনেকে মেলার প্যাভিলিয়নে বসা বিভিন্ন রকমের পণ্যের স্টলগুলো ঘুরে দেখছেন। আবার অনেককে মেলায় ছবি তুলতে ব্যস্ত সময় পার করতেও দেখা যায়।


কাশমিরি সিল্ক কার্পেটের মালিক জয়দেব কুমার বলেন, গতবার একটি স্টল নিয়েছিলাম এবার নিয়েছি। মেলাতে ক্রেতাদের চাইতে দর্শনার্থী বেশি। শীতের প্রকোট বেড়েছে। কয়েকটা দিন গেলে বেচা বিক্রি শুরু হবে পুরোদমে। তবে গত বাড়ের চেয়ে এবার দিগুণ বিক্রির আশা করছেন তিনি।


গাউছিয়া এলাকার দর্শনার্থী মাহমুদুল হাসান রবিন বলেন, আগে ঢাকায় বসত বাণিজ্য মেলা। দু-বছর ধরে আমাদের এলাকার পূর্বাচলে স্থায়ী প্যাভিলিয়নে বসানো হচ্ছে এ মেলা। গতবার সড়ক খারাপ ছিল অনেক। যানজট ও পোহাতে হয়েছে। এবার মনে করেছিলাম যানজটের ভোগান্তিতে পড়তে হবেনা। কিন্তু গতবারের মতো এবারো একই অবস্থা। এভাবে হতে থাকলে বাহিরের লোকজন আসার ইচ্ছে কমে যাবে।


নরসিংদী থেকে আসা সজীব মিয়া বলেন, উদ্বোধনের দিন থেকে মেলায় আসার জন্য অধীর আগ্রহ শুরু হয় মেলা থেকে পণ্য কেনাকাটা করবো। আজকে মেলাতে এসেছি। সাধ্যের মধ্যে কিছু পণ্য কিনেছি। তবে গতবারের চেয়ে এ বছর জিনিস পত্রের দাম অনেক বেশি।


প্রীতি এন্টার প্রাইজের দোকান মালিক বলেন, আজকে প্রথম তিনদিনের চেয়ে দর্শনার্থী ও ক্রেতা সমাগম বেড়েছে। আমরা ক্রেতাদের আকর্ষণ করার জন্য বিভিন্ন প্রকার সুবিধাজনক অফার চালু করেছি। আশা করছি বেচাকেনা বাড়তে শুরু করবে।


এ দিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর সচিব ইফতেখার আহম্মেদ চৌধুরী দৈনিক অধিকারকে বলেন, আজকে মেলার চতুর্থ দিন। মেলা মোটামুটি জমতে শুরু করেছে। শীতের সকাল তাই সকালে দর্শনার্থী ও ক্রেতা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের ভিড় থাকে।


তিনি আরও বলেন, আমরা দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের যাতায়াত ও সুবিধার্থে বাসসহ প্রশাসনিক সকল প্রকার সার্ভিস চালু করেছি। যানজট নিরসনে প্রশাসনিকভাবে সকল প্রকার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আশা করছি শীঘ্রই এটার সমাধান হয়ে যাবে।


উল্লেখ্য, এবারের আসরে সাধারণ, প্রিমিয়াম, সংরক্ষিত, ফুড স্টল, ও রেস্তোরাসহ ১৩টি ক্যাটাগরিতে স্টল থাকবে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে থাকবে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। এবারের আসরে ১২টি দেশসহ ২৫০টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করবে।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৩৪০৬৭ ২৯৩২৭৬
আক্রান্ত ৩৬৮ ১,৯৪৬,৭৩৭
সুস্থ ৪,০১৮ ১,৮৩৯,৯৯৮
মৃত ১৩ ২৯,০৭৭

Our Facebook Page