ঢাকা, রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১

৭ দিনের রিমান্ডে এসআই আকবর

লেট নগরের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে মো. রায়হান আহমদ নিহতের ঘটনায় সাময়িক বরখাস্তকৃত এসআই আকবরের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) দুপুরে তাকে সিলেট মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।


এর আগে সোমবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে জেলার কানাইঘাট উপজেলার ডোনা সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিয়ে সন্ধ্যায় সিলেট জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে এক সংবাদ সম্মেলন করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। এ সময় তিনি পুলিশের নির্যাতনে রায়হান আহমদ হত্যার সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় সবধরনের সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন।


এ দিকে, সীমান্ত এলাকার একটি সূত্র জানায়, আকবর কানাইঘাটের ডোনা সীমান্তের ওপারে খাসিয়া পল্লিতে বসবাস করছিলেন। খাসিয়ারা কৌশল করে তাকে বাংলাদেশে পাঠালে বিজিবি তাকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।


প্রসঙ্গত, গত ১০ অক্টোবর রাতে সিলেট নগরীর আখালিয়া নিহারিপাড়ার বাসিন্দা রায়হানকে বন্দরবাজার ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে নির্যাতন করা হয়। পরদিন ১১ অক্টোবর তিনি মারা যান। এ ঘটনায় হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনে তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন।


মামলার পর মহানগর পুলিশের একটি অনুসন্ধান কমিটি তদন্ত করে নির্যাতন করার সত্যতা পায়। পরে ১২ অক্টোবর ফাঁড়ির ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ এসআই টিটু চন্দ্র দাস, কনস্টেবল হারুনুর রশিদ ও তৌহিদ মিয়াকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়। এরই মধ্যে ১৩ অক্টোবর আকবর পুলিশি হেফাজত থেকে পালিয়ে গা-ঢাকা দেন।


এ দিকে পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশনায় মামলাটির তদন্ত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ওপর ন্যস্ত হলে ১৯ অক্টোবর ফাঁড়ির সেন্ট্রি পোস্টে কর্তব্যরত তিনজন কনস্টেবল আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে রায়হানকে নির্যাতনের বর্ণনা ও নির্যাতনকরীদের নাম বলেন। রায়হানকে নির্যাতনের মূল হোতা ছিলেন এসআই আকবর।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৩১৭১৪ ৮০৭৫৪০৭
আক্রান্ত ৬৯৫৯ ১৫,৫০,৩৭১
সুস্থ ৯২৬৮ ১৫,১০,১৬৭
মৃত ১৭৪ ২৭,৩৯৩

Our Facebook Page