ঢাকা, সোমবার, ১০ মে, ২০২১

রোজায় টকদই খাওয়া জরুরি যেসব কারণে

প্রচণ্ড গরমে রোজা রাখার কারণে অনেকের শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ছে। তাই এ সময় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর ফলে সুস্থ থাকা সম্ভব। সেইসঙ্গে করোনাকালে যেকোনো সময় করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা আছে। তাই রমজানের বরকতময় মাসে ইফতার ও সাহরিতে রাখতে হবে পুষ্টিকর সব খাবার।


মনে রাখবেন, পেট ভরলেই কিন্তু শরীর ভরপুর পুষ্টি পায় না। তাই মুখরোচক খাবারের বদলে মহামারি এই সময় পাতে রাখুন পুষ্টিকর সব আহার।


তেমনই এক খাবার হলো টকদই। অনেকেই হয়তো এটি খেতে পছন্দ করেন না। কারণ এর স্বাদ টক হয়ে থাকে অনেকটা। তবে পুষ্টিগুণের দিকটি বিবেচনা করলে বুঝতে পারবেন এটি আপনার শরীরের জন্য এখন কতটা গুরুত্বপূর্ণ।


রোজার সময় সাহরিতে টকদই খেলে পেটও যেমন ঠাণ্ডা থাকবে আবার সারাদিন ক্লান্তিবোধ অনুভূত হবে না। টক দই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে এবং হজম উন্নতি করে।


টকদইয়ে থাকে ক্যালসিয়াম, যা স্বাস্থ্যকর দাঁত এবং হাড়ের জন্য প্রয়োজনীয় খনিজ। এক কাপ টক দই আপনার প্রতিদিনের ক্যালসিয়ামের ৪৯ শতাংশ সরবরাহ করে। এতে ভিটামিন বি, বি-১২ এবং রাইবোফ্ল্যাভিন আছে। যা হৃদরোগ থেকে রক্ষা করে।


এক কাপ টকদইতে আপনার প্রতিদিনের ফসফরাসের ৩৮ শতাংশ, ম্যাগনেসিয়ামের ১২ শতাংশ এবং পটাসিয়ামের ১৮ শতাংশ প্রয়োজন সরবরাহ করে। এই খনিজগুলো রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, বিপাক এবং হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয়।


এছাড়া ভালো টকদইতে প্রোবায়োটিক থাকে। যা অন্ত্রের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দূর করে ভালো ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। এটি হজমের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। পেটের অস্বস্তিকর ভাব দূর করে টকদই।


নিয়মিত দই খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। এ ছাড়াও অন্ত্রের বিভিন্ন রোগ থেকে রক্ষা করে। বেশ কিছু গবেষণায় থেকে দেখা গেছে, প্রোবায়োটিক সাধারণ ফ্লু-জনিত অসুস্থতা থেকে রক্ষা করে।


টকদইতে স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং স্বল্প পরিমাণে মনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে। কিছু গবেষণা দেখা গেছে, দুগ্ধজাত খাবারে থাকা স্যাচুরেটেড ফ্যাট ভালো এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায়। যা হৃদরোগের সুরক্ষা দিতে পারে। দুগ্ধজাত খাবারগুলো উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সহায়তা করে। উচ্চ রক্তচাপই হৃদরোগের কারণ।


সাহরিতে এক কাপ টকদই খেলে রোজায় শরীরের দূর্বলতা কমবে। পাশাপাশি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে, যা এ সময় বেশি প্রয়োজন। শুধু টকদই খেতে না পারলে এর মধ্যে বিভিন্ন ফল মিশিয়েও খেতে পারেন অথবা ওটস মিশিয়েও খেতে পারেন।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ১৬৮৪৮ ৫৬৪৭৭৪২
আক্রান্ত ১৫১৪ ৭৭৫০২৭
সুস্থ ২১১৫ ৭১২২৭৭
মৃত ৩৮ ১১৯৭২

Our Facebook Page