ঢাকা, রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১

উত্তরার রেডিকেল হাসপাতালে রোগী মার্কেটিং নামে যা হয়

উত্তরা ১২ নং সেক্টরের শাহ মাখদুম রোডে অবস্থিত ব্যক্তি মালিকানা হাসপাতাল রেডিকেল এর বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রলোভন ও ভূয়া অফারের মাধ্যমে রোগীদের সাথে প্রতারনার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিবেদক যোবায়ের হোসাইন এর ধারাবাহিক তথ্যানুসন্ধানে দেখা যায়, রেডিকেলের মার্কেটিং বিভাগের সদস্যরা রাত ১০ টার পর থেকে উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এর সামনে অবস্থান নেন।


গভীর রাত ও ভোর সকালে উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যেসব রোগী আসেন, তাদেরকে হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় ও নিরাপত্তা প্রহরীদের মাধ্যমে জরুরি বিভাগে মোডিফাইড করেন।


শনিবার ভোর সকালে প্রতিবেদক মেডিকেলের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ব্যক্তিদের সাথে রোগীর আত্বীয় সেঁজে কথা বল্লে, তারা প্রতিবেদককে বলেন, আধুনিক

মেডিকেলে এ মূহুর্তে কোন চিকৎসক নেই। তাই আপনারা ভালো প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যান। গভীর রাত থেকে সকাল পর্যন্ত এভাবে ৫জন রোগীকে ২ টি

প্রাইভেট মেডিকেলে পাঠানো হয়। ৫ জন রোগীর ৩ জনই গ্রামের দিনমজুর বলে জানা যায়।


উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এর জরুরি বিভাগ থেকে রোগীদেরকে মিথ্যা বলে ব্যক্তি মালিকানা হাসপাতালে পাঠানোর কারন অনুসন্ধান করলে যে তথ্য বের হয়ে আসে তা রীতিমতো অবাক হওয়ার মতো। প্রতিটি রোগী বাবদ জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত ব্যক্তিদের ৬ হাজার করে টাকা দিতে হয়। এ ছাড়াও মোডিফাই এর জন্য নিরাপত্তা প্রহরিদের জন্য থাকে আলাদা বনাস। আর এ টাকা সকাল ৮ টার মধ্যে পরিশোধ করতে হয়।


সকাল সাড়ে ৬ টায় পাবনা থেকে এ্যাম্বুলেন্স এর মাধ্যমে নূর মোহাম্মাদ ( ৫৫ ) নামে এক রোগী আসেন উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হতে। রোগীকে এ্যাম্বুলেন্স থেকে নামানোর সাথে সাথে মোডিফাই করে পাঠিয়ে দেওয়া হয় রেডিকেল হাসপাতালে।


সরেজমিন অনুসন্ধনে রেডিকেল হাসপাতালে গিয়ে রোগীর অভিবাবকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, নূর মোহাম্মাদকে ‘আই সি ইউ’তে ভর্তি করে রাখা হয়েছে। হাসপাতালটির অনুসন্ধান ও অভ্যর্থনা রুমে নূর মোহাম্মাদ এর বিষয়ে জানতে চাইলে তারা কোন কিছু জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।


এসময় হাসপাতালটির ম্যানাজার রিয়াদ ও সহকারি ম্যানাজার শাহিন প্রতিবেদককে জানান, হাসপাতালে রোগী কিভাবে আসে আমরা তা জানিনা। এসময় তাদের

নিয়োগ প্রাপ্ত দালাল শুভ এর বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, সে হোম মার্কেটিং করে। রোগীদের হোমমার্কেটিং কিভাবে হয় প্রশ্ন করলে কোন উত্তর দেননি।

হাসপাতালটিতে ২ ঘন্টা অবস্থানের সময় এ্যাম্বুলেন্স এর মাধ্যমে ২টি রোগী আসতে দেখা যায়। যারা প্রত্যেকে বিভিন্ন জেলা থেকে দালালদের দেওয়া ঠিকানা অনুসারে এখানে এসেছেন। হাসপাতালটির উত্তরা এলাকার মার্কেটিং এর প্রধান শুভোর বিষয়ে অনুসন্ধান করলে জানা যায়, সে একজন মাদকাসক্ত। ( বাকি অংশ ২য় পর্বে )

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৫২৪৭৮ ৭৬১২৫৮৮
আক্রান্ত ৯,৩৬৯ ১,২৪৯,৪৮৪
সুস্থ ১৪,০১৭ ১,০৭৮,২১২
মৃত ২১৮ ২০,৬৮৫

Our Facebook Page