ঢাকা, রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১

‘লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইকা ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাত ময়দান

‘লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইকা লা শরীকা লাকা লাব্বাইক।’ ধর্মপ্রাণ মুসল্লির হাজারো কণ্ঠের ধ্বনিতে মুখরিত হচ্ছে আরাফাত ময়দান। করোনা সময়ে দ্বিতীয় বছরের মতো এবারও সীমিত পরিসরে হজ পালিত হচ্ছে। অবশ্য গত বছরের তুলনায় এবারে শর্তসাপেক্ষে বেশি সংখ্যক মানুষকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সারা বিশ্ব থেকে হজ করতে আগ্রহী এমন সাড়ে ৫ লাখেরও বেশি আবেদন অনলাইনে জমা পড়ে।লটারির মাধ্যমে ১৫০ দেশের মাত্র ৬০ হাজার মানুষকে এবারে হজ করার অনুমতি দেওয়া হয়। হজের জন্য করোনার দুই ডোজ টিকা নেওয়া বাধ্যতামূলক। আগের বছরও বিধিনিষেধের মধ্যে ১ হাজার মুসলিমকে হজ পালনের সুযোগ দেওয়া হয়।

শনিবার (১৭ জুলাই) থেকে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এবারও করোনার কারণে সীমিত পরিসরে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে হজের আনুষ্ঠানিকতা আদায় করা হচ্ছে।সোমবার (১৯ জুলাই) সকালে মিনা থেকে ৩ হাজার বাসে করে হজযাত্রীদের আরাফার ময়দানে সুশৃঙ্খলভাবে নিয়ে যাওয়া হয়। হজযাত্রীরা আরাফার ময়দানে সূর্যাস্ত অবধি অবস্থান করে আল্লাহর কাছে মোনাজাতের মাধ্যমে জীবনের সব গুনাহ মাফের জন্য প্রার্থনা করবেন।


হাজিরা মসজিদে নামিরা থেকে দেওয়া খুতবা শ্রবণ, যোহর, আসরের এক আজানের দুই ইকামতে কসরের সঙ্গে আদায় করবেন। তাঁবুতে অবস্থানরত হাজিরা তাঁবুতে নামাজ আদায় করবেন। আরাফাত ময়দান থেকে সূর্যাস্তের পর হাজীরা রওনা দেবেন মুজদালিফার উদ্দেশে। মুজদালিফায় পৌঁছে তারা মাগরিব ও এশার নামাজ একসঙ্গে আদায় করবেন।


তারপরে মুজদালিফার খোলা ময়দানে রাত্রি যাপন করবেন। শয়তানকে নিক্ষেপ করার জন্য সৌদি সরকারের তরফ থেকে জীবাণুমুক্ত কংকর হজযাত্রীদের সরবরাহ করা হবে। ময়দান থেকে মঙ্গলবার (২০ জুলাই) ফজরের নামাজ পড়ে সূর্যোদয়ের পর মিনা পৌঁছে হাজিরা প্রথম দিন বড় জামারায় সাতটি কংকর নিক্ষেপ করবেন। এরপর পশু কোরবানির আনুষ্ঠানিকতা সেরে মাথা মুণ্ডন করে ঈদ উদযাপন করবেন।হাজিরা মিনা-ময়দানে এভাবে তিন দিন অবস্থান করে পর্যায়ক্রমে শয়তানকে কংকর নিক্ষেপ করে হজের চূড়ান্ত আনুষ্ঠানিকতা শেষ করবেন।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৩১৭১৪ ৮০৭৫৪০৭
আক্রান্ত ৬৯৫৯ ১৫,৫০,৩৭১
সুস্থ ৯২৬৮ ১৫,১০,১৬৭
মৃত ১৭৪ ২৭,৩৯৩

Our Facebook Page