ঢাকা, রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১

এবার ট্রাফিক পুলিশের চরিত্রে মেহজাবিন

বৈচিত্রময় চরিত্রে অভিনয় করে দর্শক মুগ্ধ করে চলেছেন অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। এই লাক্স তারকা আসছে ঈদে বেশ কিছু নাটক নিয়ে হাজির হবেন। তার একটি ‘আলো’। নাটকটি ঈদের পঞ্চম দিন রাত ৮টা ৩০ মিনিটে আরটিভিতে প্রচারিত হবে। এতে মেহজাবিন এবার ট্রাফিক পুলিশের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। গোলাম সারোয়ার অনিকের রচনায় ‘আলো’ শিরোনামের নাটকটি পরিচালনা করেছেন মাহমুদুর রহমান হিমি। এতে আলো চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন চৌধুরী এবং নিয়ন রূপে হাজির হবেন মনোজ কুমার প্রামাণিক। এ নাটকের গল্পে দেখা যাবে, আলো মধ্যবিত্ত শিক্ষিত পরিবারের মেয়ে। বাবার স্বপ্ন ছিলো মেয়ে পুলিশ হবে। আলো আজ ট্রাফিক সার্জেন্ট হয়েছে। প্রথম দিনেই বাবার দোয়া নিয়ে কর্মস্থলে তার কাজ বুঝে নেয়। সারাদিন প্রখর রৌদ্রের মধ্যে কাজ করতে গিয়ে আলোকে নানা প্রতিকূল অবস্থায় পড়তে হয়। কিন্তু সমস্যাটা বাঁধে টয়লেট নিয়ে। কোন ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনেই টয়লেট নেই। একদিন রাতে ডিউটিরত অবস্থায় এক মাতাল ট্রাক ড্রাইভারের গাড়ি আটকায় আলো। সেই ড্রাইভারের লাইসেন্সের মেয়াদ উর্ত্তীর্ণ, তার উপর সে মাতাল। এ অবস্থায় গাড়ি চালালে যে কোন ধরণের বড় অ্যাক্সিডেন্ট হতে পারে ড্রাইভারকে আলো এ কথাটা বুঝাতেই পারছে না। ড্রাইভারটিকে মামলা দিলে সে আলোকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এরমধ্যে নেম প্লেট বিহীন একটি বাইক আটকায় আলো। বাইকারের নাম নিয়ন। সে এই গল্পের নায়ক। নেম প্লেট ও ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় তাকেও জরিমানা করেন আলো। এদিকে নিয়নের আলোকে ভালো লেগে যায়। সে প্রতিদিন আলোর ডিউটির জায়গায় আসে। এভাবে তাদের মধ্যে পরিচয় ও নাম্বার আদান প্রদান হয়। একদিন রাতে আলোকে ফোন দেন নিয়ন। কিন্তু আলোর সহকর্মী রুমা জানায় আলো অসুস্থ। পর্যাপ্ত পানি না খাওয়ায় এবং দীর্ঘ সময় পশ্রাব আটকে রাখায় ইনফেকশন হয়েছে এবং সেখান থেকে কিডনিতেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। আলোর আবেদনের প্রেক্ষিতে একসময় প্রত্যেক নারী পুলিশ বক্সের সামনে পোর্টেবল টয়লেট স্থাপন করা হয়। সবাই আলোকে অভিনন্দন জানায়। নিয়নও তাদের একজন। নিয়ন আলোকে ফোন দিয়ে বলে এমন একটা বিষয় সেলিব্রেট করা উচিত। আলো জানায় ডিউটি শেষে তারা কোথাও বসে সেলিব্রেট করবে। কিন্তু তার আগেই ঘটে যায় দুর্ঘটনা। যা দর্শকের মনে দাগ কাটবে বলে বিশ্বাস পরিচালকের।

ads
ads

করোনা পরিস্থিতি বাংলাদেশ

২৪ ঘণ্টায় মোট
পরীক্ষা ৫২৪৭৮ ৭৬১২৫৮৮
আক্রান্ত ৯,৩৬৯ ১,২৪৯,৪৮৪
সুস্থ ১৪,০১৭ ১,০৭৮,২১২
মৃত ২১৮ ২০,৬৮৫

Our Facebook Page